এয়ারেটর ব্যবহারের সতর্কতা

-বিদ্যুতের লাইনে যাতে ভোল্টেজ ২২০ এর কাছাকছি থাকে সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখলে এয়ারেটরটি দীর্ঘ দিন সার্ভিস দেয়
-বিদ্যুতের লইনের জন্য কমপক্ষে ২২/৭ (৩.০ আর এম) তার ব্যবহার করতে হবে, না হলে ভাল সার্ভিস পাওয়া যাবে না
-এয়ারেটর এর সাথে ব্যবহৃত বিদ্যুতের তার অবশ্যই ভাল মানের হতে হবে, না হলে মটর বেশি দিন ভাল থকবে না
– তার পুকুরে ভালভাবে খুটি দিয়ে উচু করে বিধে দিতে হবে, তার পানির সংস্পর্শে এলে দূর্ঘটনা ঘটতে পারে
– মটর চালু করার পূর্বে সকলেই পানি থেকে উঠে, তারপর মটর চালু করবেন, কারণ অনেক সময় মটর শট হয়ে পানি বিদ্যুতায়িত হতে পারে
– যেসব এয়ারেটরে গিয়ার বক্স আছে সেগুলোতে অবশ্যই গিয়ার ওয়েল ব্যবহার করতে হবে
– এয়ারেটর পানিতে না নামিয়ে উপরে বেশিক্ষণ চালাতে মটরের ক্ষতি হতে পারে, সুতরাং আপনি মটর শুধু টেস্ট করার জন্য চালু করে দেখতে পারেন, সেটি বেশিক্ষণ পানির উপরে চালাবেন না
– গিয়ার ওয়েল নির্দিষ্ট সময় পরপর বদলাতে হয় এতে মটর আনেক দিন ভাল থাকে

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

    Leave a Reply